RobinsHQ is Now Bangla Vibes. CLICK to SUBSCRIBE

(VIDEO) কিটো ডায়েট সম্পর্কে জানুন | Keto Diet In Bangla

May 18, 2020
আমি কিটো ডায়েট ২ মাসের জন্য ছেড়ে দিয়েছিলাম (কোভিড ও নানাবিধ কারনে)। আমি আবারও নিজেকে মানসিকভাবে প্রস্তুত করছি, কিটো ডায়েট শুরু হবে আবার। সাথে থাকুন। আমার প্রথম কিটো শুরু করার ভিডিওটি দেখুন এবং কিটো ডায়েট সম্পর্কে একটি ধারনা নিয়ে নিন।

হ্যালো ফ্রেন্ডস! আজকের ভিডিওতে আমি কিটোজেনিক ডায়েট সম্পর্কে বলব। আপনারা যারা দ্রুত ওজন কমাতে চাচ্ছেন তাদের জন্য আজকের এই ভিডিওটি অত্যন্ত উপকারী হবে বলে আশা করছি।

তার আগে, যদি আপনারা এখনও আমাদের চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব না করে থাকেন তাহলে এখনি Subscribe করে নিন। সেই সাথে পাশে থাকা বেল আইকনটিও ক্লিক করতে পারেন, তাহলে নতুন ভিডিও পাবলিশ হওয়া মাত্রই আপনার কাছে নোটিফিকেশন চলে যাবে।

কিটোজেনিক ডায়েট বা সংক্ষেপে কিটো ডায়েট ওজন কমানোর জন্য সবচেয়ে কার্যকর একটি পদ্ধতি। এই পদ্ধতিতে ডায়েট চার্টে কার্বোহাইড্রেট থাকে খুব সামান্য কিন্তু বেশি মাত্রায় রাখা হয় ফ্যাট এবং প্রোটিন।

যারা এতদিন জানতেন ফ্যাট জাতীয় খাবার খেলে ওজন বাড়ে তারা ভুল জানতেন। গবেষকদের রিসার্চ অনুযায়ী, কিটো ডায়েট পদ্ধতিতে শরীর সম্পূর্ণ সুস্থ রেখে ওজন কমানো যায়। আপনিই চিন্তা করে দেখুন, আপনি সারাদিন কী খাচ্ছেন? সিঙ্গারা? সামুচা?, ভাত, মাছ?, নুডুলস?, বার্গার?, কাপের পর কাপ কনডেন্স মিল্কের চা? খিচুরি? তেহারি? কাচ্চি?

আপনার মত আমিও এসব খেতাম। খুব পছন্দ করে খেতাম। এসকল বেশিরভাগ খাবারে চর্বি বা ফ্যাট তেমন বেশি নেই। যা আছে তা হচ্ছে শর্করা বা কার্বোহাইড্রেড। এখন বলুন চর্বি খেয়ে মোটা হয়েছেন? নাকি স্রেফ ভাত রুটি খেয়ে?

কিটো ডায়েট পদ্ধতিতে ৭৫ ভাগ ফ্যাট, ২০ ভাগ প্রোটিন এবং ৫ ভাগ শর্করা বা কার্বোহাইড্রেট থাকে।

যখন আপনি খুব কম পরিমাণ শর্করা এবং বেশি পরিমাণ প্রোটিন গ্রহণ করেন তখন আপনার লিভার ফ্যাট থেকে কিটোন উৎপন্ন হয়। পরবর্তীতে এই কিটোন ই শরীরের; বিশেষ করে মস্তিষ্কের শক্তির উৎস হিসেবে কাজ করে। তাই এই কম শর্করা আর বেশি প্রোটিনের ডায়েট কে কিটোজেনিক ডায়েট বলে।

আশা করি বুঝতে পেরেছেন। আমি দু'দিন হলো কিটো ডায়েট শুরু করেছি। প্রথম দিনেই আমি এর ফলাফল পেয়েছি। নিজেকে অনেক হালকা মনে হয়েছে। যদিও, প্রথম প্রথম কিছু ডিসকমফোর্ট হতে পারে। যেমন: মাথা ঘুরনো, কপালের ফ্রন্টাল লোবে প্রেশার, কনস্টিপেশন ইত্যাদি।

এই ডিসকমফোর্ট হবে কারণ আপনার শরীর কিটো ডায়েটের সাথে ইউসড-টু না। সপ্তাহ খানেকের ভেতর সবকিছু স্ট্যাবল হয়ে যাবে।

গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে, দুই ধরনে কিটো ডায়েট রয়েছে: গুড কিটো এবং ব্যাড কিটো।

আপনাকে বেশি ফ্যাট খেতে বলা হয়েছে দেখে দেদারসে খেয়ে যাবেন বিষয়টা কিন্তু এমন নয়। আপনার শরীরে থাকা ফ্যাট বা চর্বিই যেন আপনার শরীর খাদ্য হিসেবে ব্যবহার করা শুরু করে সেটাই লক্ষ্য।

আমি সামনে কিটো ডায়েট নিয়ে আরও ভিডিও দিবো যেখানে কিটো ডায়েট রেসিপি অনুযায়ী রান্না করে দেখানো হবে। আজকের ভিডিওতে শুধু বলে রাখি আপনারা যা খেতে পারবেন না এবং যা আপনার খাওয়া উচিত হবে।

যা খেতে পারবেন না, একেবারেই পারবেন না:

- যেকোনো ধরনের রুটি পরটা পাউরুটি ইত্যাদি
- ভাত, বিরিয়ানি, পোলাও, কাচ্চি, খিচুরি, তেহারি ইত্যাদি
- সিঙ্গারা, সামুচা, বার্গার, রোল ইত্যাদি
- চিনি দিয়ে তৈরি যে কোনো খাবার
- মধু এবং মধু দিয়ে তৈরি যে কোনো খাবার
- নুডুলস এবং নুডুলস জাতীয় খাবার যেমন, চাওমিন, লুমিন, পাস্তা, স্প্যগেটি ইত্যাদি
- ফলের মধ্যে মিষ্টি যে কোনো ফল খাওয়া নিষেধ; যেমন: আপেল, আঙুর, কমলা, কলা, তরমুজ ইত্যাদি
- আলু এবং আলু দিয়ে তৈরি সকল খাবার
- ভেজিটেবল অয়েল
- অ্যালকোহল
- দুধ এবং দুধ দিয়ে তৈরি খাবার

ইত্যাদি। 
না খেতে পারার লিস্ট অনেক বড়। আপনারা কমেন্টে প্রশ্ন করতে পারেন আমি অবশ্যই উত্তর দিবো। মন খারাপ হলে চলবে না। ওজন আপনাকে কমাতেই হবে। ডিটারমাইন্ড থাকুন।

এবার আসুন জেনে নেই যা খেতে পারবেন:

১। ডিম
২। মাখন
৩। গরুর মাংস
৪। মুরগির মাংস
৫। খাশীর মাংস
৬। সকল মাছ
৭। শেল ফিশ যেমন চিংড়ি এবং কাকড়া
৮। চিজ
৯। সিমের বিচি
১০। বিভিন্ন ধরনের বাদাম
১১। অলিভ ওয়েল, নারিকেল তেল
১২। অ্যাভোকেডো
১৩। টমাটো, কাচামরিচ, ফুলকপি, বাধাকপি, পালং শাক
১৪। লবন ও সকল মসলা
১৫। স্ট্রবেরি, রাস্পবেরি ইত্যাদি সকল বেরি জাতীয় ফল
১৬। ব্ল্যাক কফি
১৭। চিনি ছাড়া রং চা অথবা গ্রিন টি

আশা করছি বুঝতে পেরেছেন। মূল ব্যপার হচ্ছে স্টার্চ বা শর্করা জাতীয় খাবার বাদ দেয়া। আপনারা গুগল করে বের করে নিতে পারবেন কোন খাবার কী পরিমান স্টার্চ আছে। পালং শাকে অল্প পরিমান স্টার্চ আছে এবং এটা আপনি খেতে পারবেন। অন্যদিকে ভাত এবং রুটি খাওয়া ভুলে যান। 

সিঙ্গারা, সামুচা ইত্যাদি খাওয়া বাদ দিয়ে দিন। ওজন কমাতে হলে কষ্ট একটু করতেই হবে। সেটা হোক ডায়েটের মাধ্যমে।

কোন বেলায় কি খেতে পারেন এবং কোন বেলায় না খেলেও চলবে এসব বিষয় নিয়ে কথা বলব অন্য একটি ভিডিও তে। আপনাদের ভাল লাগলো লাইক করুন শেয়ার করুন। এবং প্রশ্ন থাকলে কমেন্টে লিখুন।

আপাতত bye bye!

কিটো ডায়েটে কি মধু খাওয়া যাবে?

কিটো ডায়েটে চিট ডে

কিটো ডায়েটে কি কি ফল খাওয়া যাবে

কিটো ডায়েটে সারাদিনের খাবার


অন্যান্য পোস্ট