সাবস্ক্রাইব করেছেন তো? না করলে এখানে ক্লিক করুন!

আমেরিকার ফ্লোরিডায় বসবাস করার ৩ টি প্রধান কারণ - Why Live in Florida?

হোয়াই লিভ ইন ফ্লোরিডা? অনেকে বলবেন এখানে ডিজনি ল্যান্ড আছে তাই, অনেকে বলবে জনসংখ্যা কম তাই, আবার অনেকে বলতে পারে এখানে অ্যালিগেটর আছে তাই। বাই দ্যা ওয়ে, অ্যালিগেটর থাকাটা কোনো গুড ফিচার না, এটা আসলে একটা বিপদের নাম। যাই হোক, আপনারা আশা করছি ভালো আছেন, ওয়েককাম ব্যাক টু Bangla Vibes. আমি আজ আপনাদের বলবো ফ্লোরিডায় বসবাস করার তিনটি প্রধান কারন। আপনি যদি আমেরিকায় আসতে চান অথবা আমরিকার অন্য স্টেট থেকে মুভ করার কথা চিন্তা করে থাকেন তাহলো ফ্লোরিডার ব্যপার এই বিষয়গুলো মাথায় রাখতে পারেন:

১। ফ্লোরিডার ওয়েদার:
এখানকারখার আবহাওয়া একেবারই বাংলাদেশের মত। এ যেনো আমেরিকার বুকে আরেক বাংলাদেশ। সূর্য থাকে আকাশে বছরের প্রায় প্রতিটা দিন। বৃষ্টির সিজনে বেশ ভালো বৃষ্টি হয়। সিজন ছাড়াও যখন তখন নামে বৃষ্টি। এরকম আবহাওয়ার জন্য প্রতি বছর প্রচুর ট্যুরিস্ট ভীড় করে ফ্লোরিডাতে, শুধুমাত্র আমেরিকা থেকেই। বেশিরভাগ ট্যুরিস্ট আসেন আমেরিকার নর্থ সাইড থেকে। অর্থ্যাৎ শীতের দেশ থেকে। বাই দ্যা ওয়ে ফ্লোরিডায় তুষারপাত হয় না তবে হারিকেন ঝড় হয়ে থাকে। ফ্লোরিডার ওয়েদার বাংলাদেশের মত হওয়াতে এখানে আম, জাম, কাঠাল, লিচু সহ আরও নানারকম শাকসবজি খুব সহজে উৎপন্ন হয়। আর সেই সাথে রয়েছে বৈচিত্রময় পশু পাখি। বিশেষ করে প্রচুর প্রচুর পাখি দেখা যায় ফ্লোরিডাতে। এক কথায় ফ্লোরিডা হচ্ছে প্রাকৃতিক ভূসর্গ। আমাদের চ্যানেলে আমরা ফ্লোরিডার সৌন্দর্য্য দেখিয়ে থাকি মাঝে মাঝেই। যারা আমাদের চ্যানেলে এখনও সাবস্ক্রাইব করেন নি তারা এখনি করে নিন।

২। ফ্লোরিডার সমুদ্র সৈকত:
হ্যা এখানকার বিচগুলো বিশ্ব সেরা। কিন্তু থিঙ্ক আ্যাবাউট দিস, বাসা থেকে ১০ মিনিট ড্রাইভ করে গেলে সমুদ্র। ফ্লোরিডার লাইফটাই হচ্ছে বিচ লাইফ, আর বিচ লাইফ মানেই পার্টি আর পার্টি। কয়েকটা নামকরা বিচের নাম বলি, কি ওয়েস্ট, ক্লিয়ার ওয়াটার, স্যানিবেল আইল্যান্ড, ক্যাপটিভা আইল্যান্ড, পাম বিচ, ডেলরে বিচ, সাউথ বিচ, ওহ মায়ামি বিচ বলতে আপনারা যেটা বোঝেন সেটা হচ্ছে আসলে সাউথ বিচ। ইমাজিন করুন, আপনার অফিস শেষ, খাওয়া দাওয়া করে রিলাক্স করার জন্য বিকালে ঘুরতে চলে গেলেন সি বিচে। বাসায় এসে রেস্ট নিয়ে পরের দিনের অফিসের প্রস্তুতি নেয়া বাকি থাকলো। ফ্লোরিডার পূর্ব দিকে আটলানটিক মহাসাগর এবং পশ্চিমে মেক্সিকো উপসাগর। শতশত মাইল জুড়ে ফ্লোরিডার বিচগুলো। এক কথায় অসাধারন।

৩। নো স্টেট ইনকাম ট্যাক্স:
জ্বি, ফ্লোরিডা স্টেটের জন্য কোনো ইনকাম ট্যাক্স দিতে হয় না। আমেরিকায় হাতে গোনা নয় টা স্টেট আছে যেখানে আপনাকে স্টেটের জন্য ইনকাম ট্যাক্স দেয়া লাগে না। আপনাদের সুবিধার্তে আমি স্টেটের নামগুলো বলছি শুনুন: আলাস্কা, নেভাডা, নিউ হ্যাম্পশায়ার, সাউথ ডাকোটা, টেনেসি, টেক্সাস, ওয়াশিংটন, ওয়াইয়োমিং এবং ফ্লোরিডা। সেই থাকে ফ্লোরিডার সেলস ট্যাক্স এবং প্রোপার্টি ট্যাক্স অনেক কম। দ্যাট মিনস আপনি যা ইনকাম করবেন তার থেকে খুব ভালো পরিমান সেভিং আপনি এখানে করতে পারবেন।


অন্যান্য পোস্ট